উপজেলার পটভুমি : রংপুর জেলার ইতিহাস গ্রন্থে বলা হয়েছে যে, অতিতে এখানে কাউনিয়া নামে একটি ঐতিয্যবাহি বর্ধিষ্ণু গ্রাম ছিল। যা তিস্তা নদীর করাল গ্রাসে বিলিন হয়ে গেছে। উক্ত গ্রামের নাম অনুসারে এ এলাকার নাম হয়েছে কাউনিয়া। অন্য এক জনশ্রুতিমতে, এ এলাকায় কাউনি নামক এক প্রকার দানাদার খাদ্য শস্য প্রচুরভাবে চাষ হত এবং চাহিদাও ছিল প্রচুর। চাষাবাদ নিয়ে এলাকায় নানান রকম বিবাদ এবং মারামারী সংঘটিত হওয়ার কারনে এ এলাকার ব্যাপক পরিচিত ঘটে। কাউনি শব্দের সাথে ইয়া প্রত্যয় হিসাবে কাউনিয়া নামের প্রচলন হয় বলে জানা যায়। এছাড়াও ১৭৬৯ খ্রিঃ রংপুরে ছিয়াত্তরের মম্বন্তর বা দুর্ভিক্ষ হয়। এ সময় রংপুরে ইংরেজ তত্ত্বাবধায়ক ছিলেন মিঃ গ্রুস। তিনি কাউনিয়া এলাকা থেকে রংপুরে খাদ্য শষ্য আমদানি করার জন্য কাউনিয়ায় আড়ত গড়ে তুলেছিলেন। যেখানে ইংরেজ, ফরাসী ও আরমানিয়াম বণিকেরাও ব্যবসা করতেন। খাদ্য শস্য পরিবহনের জন্য ব্যবহৃত হত গরুর গাড়ী। গরুর গাড়ীকে বলা হত কাউকার্ট। এই কাউকার্ট শব্দ থেকেও অপভ্রংশের মধ্য দিয়ে কাউনিয়া নামের উৎপত্তি হয়েছে বলে জনশ্রুতি আছে।
অবস্থান : কাউনিয়া ২৫.৭৭০৮ ডিগ্রি উত্তর এবং ৮৯.৪১৬৭ পূর্ব অক্ষাংশে অবস্থিত। এটি তিস্তা নদীর তীরে অবস্থিত। বর্তমানে কাউনিয়া উপজেলার বেশ কিছু অংশ তিস্তা নদীতে মিশে গেছে।

উপজেলা সীমানা : কাউনিয়ার উত্তরে- লালমনিরহাট, দক্ষিনে- পীরগাছা, পূর্বে- কুড়িগ্রাম এবং পশ্চিমে- রংপুর সদর উপজেলা।  কাউনিয়ার মূল নদী তিস্তা ও বুরাইল। কাউনিয়ায় ছয়টি ইউনিয়ন আছে। এগুলো হচ্ছে- হারাগাছ, সারাই, কুর্ষা, শহীদবাগ, বালাপাড়া এবং মধুপুর। কাউনিয়ায় ৮৯ টি মৌজা এবং ৭৮ টি গ্রাম আছে।

উল্লেখযোগ্য স্থান বা স্থাপনা : তিস্তা রেল ব্রীজ, তিস্তানদী ও ধুম নদী, তিস্তা সেতু, টেপার জমিদার বাড়ী, ভায়ারহাটের মন্দির, ঐতিহাসিক সাদা মসজিদ, মায়া মসজিদের মিনার।
কৃতী ব্যক্তিত্ব : শহীদ মোফাজ্জল হোসেন,রহিম উদ্দীন ভরসা ,করিম উদ্দীন ভরসা।
শিক্ষা : কাউনিয়া উপজেলা শিক্ষাইয় অনেক এগিয়ে। অত্র উপজেলার প্রায় ৮০% মানুষ শিক্ষিত। কাউনিয়া ডিগ্রি কলেজ এই উপজেলার সবচেয়ে ভাল কলেজ।
জনসংখ্যা:  কাউনিয়ায় ২৫৫০০ জন লোক বাস করে। (১৯৯১ সালে ছিল ১১১২৫ জন)এরমধ্যে ৫২.৫% পুরুষ এবং ৪৭.৫% মহীলা। জনসংখ্যার ঘনত্ব ১৭১৪ প্রতি বর্গ কিমি।

দর্শনীয় স্থান: রংপুর জেলার মধ্যে কাউনিয়া উপজেলা স্থানগত দিক থেকে অনেক উন্নত। এখানে ভবিষতে পর্যটন এলাকা গড়ে উঠার মত স্থান রয়েছে। তিস্তা রেল সেতুটি অনেক আগে থেকে দর্শনীয় স্থান হিসাবে বিবেচিত।

কাউনিয়া উপজেলা এক নজরে : আয়তন  ১৪৭.৬০ বর্গ কিঃ মিঃ। জন সংখ্যা : ২,৪৩,৪০৫ জন। ঘনত্ব :  ১,৬৪৯ জন (প্রতি বর্গ কিঃ মিঃ) নির্বাচনী এলাকা : ২২-রংপুর-৪ (কাউনিয়া ও পীরগাছা)। ইউনিয়ন :  ০৬ টি। পৌরসভা ; ০১ টি (হারাগাছ)। মৌজা :  ৮০ টি। সরকারী হাসপাতাল : ০২ টি। স্বাস্থ্য কেন্দ্র :  ০৪ টি। কমিউনিটি ক্লিনিক :  ১৯ টি। পোষ্ট অফিস : ০২ টি। নদ-নদী :  ০২ টি। হাট-বাজার :  ১৬ টি। ব্যাংক :  ০৭ টি। ডাক বাংলো : ০১ টি (কক্ষ সংখ্যা ০৩ টি)

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।